কুরআন ও সুন্নাহের ওপর আরোপিত বিভিন্ন প্রশ্নের জাওয়াব

অনুবাদক: জাকেরুল্লাহ আবুল খায়ের।। সম্পাদক: ড. আবু বকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের বাণী— « إِنَّ أَوَّلَ مَا خَلَقَ اللَّهُ الْقَلَمَ “আল্লাহ তা‘আলা সর্বপ্রথম কলম সৃষ্টি করেছেন।”[1] রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের বাণী— كَانَ اللَّهُ وَلَمْ يَكُنْ شَيْءٌ قَبْلَهُ“আল্লাহ ছিলেন তার পূর্বে কোন কিছুই ছিল না

প্রশ্ন: নিম্ন বর্ণিত হাদীসগুলোর মধ্যে কীভাবে বিরোধ নিষ্পত্তি করা হবে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, . كَانَ اللَّهُ وَلَمْ يَكُنْ شَيْءٌ قَبْلَهُ وَكَانَ عَرْشُهُ عَلَى الْمَاءِ ثُمَّ خَلَقَ السَّمَوَاتِ وَالْأَرْضَ “আল্লাহ ছিলেন, তার পূর্বে আর কোন কিছু ছিল না। তার আরশ ছিল পানির ওপর। তিনি নিজ হাতে সবকিছু লিপিবদ্ধ করেন তারপর তিনি আসমানসমূহ ও জমিন সৃষ্টি করেন।”[2] মুসনাদে ইমাম আহমাদে লাকীত ইবনে সাবুরাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, قلت يا رسول الله أين كان ربنا قبل أن يخلق خلقه ؟ قال (كان في عماء ما تحته هواء وما فوقه هواء وما ثم خلق عرشه على الماء)  “আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসূল! মাখলুক সৃষ্টি করার পূর্বে আমাদের রব কোথায় ছিলেন? তিনি বললেন, মেঘের মধ্যে তার উপরেও পানি ছিল না এবং তার নিচেও পানি ছিল না এবং সেখানে কোন মাখলুক ছিল না, তার আরশ ছিল পানির উপর।”[3] অপর হাদীসে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, «إِنَّ أَوَّلَ مَا خَلَقَ اللَّهُ الْقَلَمَ  “আল্লাহ তা‘আলা সর্বপ্রথম কলম সৃষ্টি করেছেন।” সৃষ্টির মধ্যে সর্বপ্রথম মাখলুক কি এ বিষয়ে হাদীসগুলোর বাহ্যিক অর্থ বিরোধপূর্ণ। অনুরূপভাবে অপর একটি হাদীস রয়েছে যাতে বলা হয়েছে—“সর্ব প্রথম সৃষ্টি মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম”। এ সব বিরোধপূর্ণ হাদীসের সমাধান কি?

উত্তর: হাদীসগুলো মীমাংসিত সামঞ্জস্যপূর্ণ, বিরোধপূর্ণ নয়। আমাদের জানা সর্বপ্রথম তিনি আরশ সৃষ্টি করেছেন। আসমানসমূহ সৃষ্টির পর তিনি আরশে আরোহণ করেন। যেমন, আল্লাহ তা‘আলা বলেন, ﴿وَهُوَ ٱلَّذِي خَلَقَ ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضَ فِي سِتَّةِ أَيَّامٖ وَكَانَ عَرۡشُهُۥ عَلَى ٱلۡمَآءِ لِيَبۡلُوَكُمۡ أَيُّكُمۡ أَحۡسَنُ عَمَلٗاۗ ٧﴾ [هود: ٧]   “আর তিনিই আসমানসমূহ ও জমিন সৃষ্টি করেছেন ছয় দিনে, আর তাঁর আরশ ছিল পানির উপর, যাতে তিনি পরীক্ষা করেন, কে তোমাদের মধ্যে আমলে সর্বোত্তম।” [সূরা হূদ, আয়াত: ৭] কলম সম্পর্কীয় হাদীসে এ কথার প্রমাণ নেই যে, সর্ব প্রথম কলমকে সৃষ্টি করা হয়েছে। বরং হাদীসের অর্থ হলো, আল্লাহ তা‘আলা যখন কলম সৃষ্টি করেন তখন তাকে তিনি লিখতে নির্দেশ দেন। তখন প্রতিটি বস্তুর ভাগ্য লিপিবদ্ধ করেন। আর মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তিনি অন্যান্য মানুষের মতোই একজন মানুষ। তার পিতা আব্দুল্লাহ ইবন আব্দুল মুত্তালিবের বীর্য থেকে তাকে সৃষ্টি করা হয়েছে। সৃষ্টির দিক বিবেচনায় অন্য মাখলুকের তুলনায় তার কোন ব্যতিক্রম বৈশিষ্ট্য নেই। তিনি নিজেই তার নিজের সম্পর্কে বলেন, إِنَّمَا أَنَا بَشَرٌ مِثْلُكُمْ أَنْسَى كَمَا تَنْسَوْنَ. “নিশ্চয় আমি একজন মানুষ আমিও ভুল করি যেমন তোমরা ভুল কর।”[4] রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ক্ষুধার্ত হন, তৃষ্ণার্ত হন, তার ঠাণ্ডা লাগে, গরম লাগে, অসুস্থ হয়, মৃত্যু বরণ করেন এবং মানুষ হিসেবে মানবিক যত দুর্বলতা অন্য মানুষের থাকে তাকেও তার সবকিছুরই সম্মুখীন হতে হয়েছে। অন্যান্য মানুষের তুলনায় তার পার্থক্য হলো, তার কাছে অহী প্রেরণ করা হয়েছে অন্যদের কাছে নয়, তিনি রিসালাতের অধিকারী অন্যরা নয়। যেমন, আল্লাহ তা‘আলা বলেন,﴿ٱللَّهُ أَعۡلَمُ حَيۡثُ يَجۡعَلُ رِسَالَتَهُۥۗ ١٢٤﴾ [الانعام: ١٢٤]  “আল্লাহ ভালো জানেন, তিনি কোথায় তাঁর রিসালাত অর্পণ করবেন।” [সূরা আল-আন‘আম, আয়াত: ১২৪] আল্লাহ তা‘আলাই তাওফীক দাতা

শাইখ মুহাম্মদ বিন উসাইমীন রহ.

[1] আবূ দাউদ, হাদীস নং ৪৭০২

[2] সহীহ বুখারী হাদীস নং 7418

[3] ইবন মাযা, হাদীস নং 182 আলবানী হাদীসটিকে দূর্বল বলেছেন।

[4]  সহীহ বুখারী, হাদীস নং ৪০১

ব্লগ সাইটটি যদি আপনার মনের কোথাও একটুও যায়গা করে নেয় বা ভালো লেগে থাকে। তাহলে আপনিও ব্লগের কার্যক্রম কে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে আপনার লেখণী পাঠাতে পারেন।আপনার লেখনী পাঠিয়ে আমাদের ফেচবুক পেজের ম্যাসেঞ্জারে গিয়ে দয়াকরে নক করুন।
নিচে মন্তব্যের ঘরে আপনাদের মতামত জানান। ভালো লাগবে আপনাদের অভিপ্রায়গুলো জানতে পারলে। আর লেখা সম্পর্কিত কোন জিজ্ঞাসার উত্তর পেতে অবশ্যই “ওয়ার্ডপ্রেস থেকে কমেন্ট করুন”।

আপনার মন্তব্য লিখুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন