মুহাম্মাদ ইবন আবদুল ওয়াহহাব রহ.

অনুবাদ ও সম্পাদনা:

ড. আবু বকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া

ঈমানের শাখা-প্রশাখা সত্তরেরও অধিক। এর মধ্যে সর্বোচ্চ হচ্ছে, ‘লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ’ মুখে উচ্চারণ করা। আর সর্বনিম্ন হচ্ছে পথ থেকে কষ্টদায়ক বস্তু দূরে সরিয়ে দেয়া, আর লজ্জাশীলতা হচ্ছে, ঈমানের শাখাসমূহের মধ্যে একটি শাখা।

তবে ঈমানের রুকন বা স্তম্ভ হচ্ছে ছয়টি:

(১) আল্লাহর ওপর ঈমান।

(২) ফিরেশতাগণের ওপর ঈমান।

(৩) আসমানী কিতাবসমূহের ওপর ঈমান।

(৪) রাসূলগণের ওপর ঈমান।

(৫) শেষ দিবসের ওপর ঈমান।

(৬) তাকদীরের ভালো-মন্দের প্রতি ঈমান।

ছয়টি রুকনের দলীল হচ্ছে, আল্লাহর বাণী,

﴿لَّيۡسَ ٱلۡبِرَّ أَن تُوَلُّواْ وُجُوهَكُمۡ قِبَلَ ٱلۡمَشۡرِقِ وَٱلۡمَغۡرِبِ وَلَٰكِنَّ ٱلۡبِرَّ مَنۡ ءَامَنَ بِٱللَّهِ وَٱلۡيَوۡمِ ٱلۡأٓخِرِ وَٱلۡمَلَٰٓئِكَةِ وَٱلۡكِتَٰبِ وَٱلنَّبِيِّ‍ۧنَ﴾ [البقرة: ١٧٧] 

“তোমরা পূর্ব অথবা পশ্চিম দিকে মুখ ফিরাবে এতে কোনোই পূণ্য ও কল্যাণ নেই; বরং পূণ্য হচ্ছে যে আল্লাহ, শেষ দিবস, ফিরিশতাকুল, কিতাবসমূহ ও নবীগণের ওপর ঈমান আনয়ন করে।” [সূরা আল-বাকারা, আয়াত: ১৭৭]

আর তাকদীর এর প্রমাণ হচ্ছে আল্লাহর বাণী,

﴿إِنَّا كُلَّ شَيۡءٍ خَلَقۡنَٰهُ بِقَدَرٖ ٤٩﴾ [القمر: ٤٩] 

“নিশ্চয় আমরা প্রতিটি জিনিসের তাকদীর নির্ধারণ করে সৃষ্টি করেছি।” [সূরা আল-ক্বামার, আয়াত: ৪৯]

এই বইটির সকল আর্টিকেল গুলো পড়তে নিচের লিংক ক্লিক করুন:

চারটি বিষয় জানা অবশ্য-কর্তব্যচারটি বিষয় জানা অবশ্য-কর্তব্য

তিনটি বিষয় জানা অবশ্য কর্তব্য

তিনটি মূলনীতি

মিল্লাতে ইবরাহীমের মূলকথা

প্রথম মূলনীতি: রব সম্পর্কে জানা

দ্বিতীয় মূলনীতি: প্রমাণাদিসহ ইসলাম সম্পর্কে জানা

প্রথম পর্যায়: ইসলাম

দ্বিতীয় পর্যায়: ঈমান

তৃতীয় পর্যায়: ইহসান

তৃতীয় মূলনীতি: রাসূলুল্লাহ সাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম সম্পর্কে জানা