(1) «سَمِعَ اللَّهُ لِمَنْ حَمِدَهُ».

(সামিআল্লা-হু লিমান হামিদাহ)।

(১) “যে আল্লাহর হামদ-প্রশংসা করে, আল্লাহ তার প্রশংসা শুনুন (কবুল করুন)।”[1]

39-(2) «رَبَّنَا وَلَكَ الْحَمْدُ، حَمْداً كَثيراً طَيِّباً مُبارَكاً فِيهِ».

(রব্বানা ওয়া লাকাল হামদু, হামদান কাছীরান ত্বায়্যিবান মুবারাকান ফীহি)

(২) “হে আমাদের রব্ব! আর আপনার জন্যই সমস্ত প্রশংসা; অঢেল, পবিত্র ও বরকত-রয়েছে-এমন প্রশংসা।”[2]

40-(3)«مِلْءَ السَّمَوَاتِ وَمِلْءَ الأَرْضِ، وَمَا بَيْنَهُمَا، وَمِلْءَ مَا شِئْتَ مِنْ شَيءٍ بَعْدُ. أَهلَ الثَّناءِ وَالْمَجْدِ، أَحَقُّ مَا قَالَ الْعَبْدُ، وَكُلُّنَا لَكَ عَبْدٌ. اللَّهُمَّ لاَ مَانِعَ لِمَا أَعْطَيْتَ، وَلاَ مُعْطِيَ لِمَا مَنَعْتَ، وَلاَ يَنْفَعُ ذَا الجَدِّ مِنْكَ الجَدُّ».

(মিল’আস সামা-ওয়া-তি ওয়া মিল’আল আরদি ওয়ামা বাইনাহুমা, ও মিল’আ মা শিতা মিন শাইয়িন বাদু, আহলাস সানা-য়ি ওয়াল মাজদি, আহাক্কু মা ক্বালাল আবদু, ওয়া কুল্লুনা লাকা আবদুন, আল্লা-হুম্মা লা মানিআ লিমা আত্বাইতা, ওয়ালা মুতিয়া লিমা মানাতা, ওয়ালা ইয়ানফায়ু যাল-জাদ্দি মিনকাল জাদ্দু)।

(৩) “(আপনার প্রশংসা করছি) আসমানসমূহ পূর্ণ করে, যমীন পূর্ণ করে ও যা এ দু’টির মাঝে রয়েছে (তাও পূর্ণ করে), আর এর পরে যা পূর্ণ করা আপনার ইচ্ছা তা পূর্ণ করে। হে প্রশংসা ও সম্মান-মর্যাদার যোগ্য সত্তা! বান্দা সবচেয়ে যে সঠিক কথাটি বলেছে তা হচ্ছে (আর আমরা সবাই আপনার বান্দা) হে আল্লাহ, আপনি যা প্রদান করেছেন তা বন্ধ করার কেউ নেই, আর আপনি যা রুদ্ধ করেছেন তা প্রদান করার কেউ নেই। আর কোনো ক্ষমতা-প্রতিপত্তির অধিকারীর ক্ষমতা ও প্রতিপত্তি আপনার কাছে কোনো কাজে লাগবে না।”[3]

তথ্য সূত্র :


[1] বুখারী, (ফাতহুল বারীসহ) ২/২৮২, নং ৭৯৬।

[2] বুখারী, (ফাতহুল বারীসহ) ২/২৮৪, নং ৭৯৬।

[3] মুসলিম, ১/৩৪৬; নং ৪৭৭।